মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম :
ভাইয়ের হাতে ভাই খুনের ঘটনায় ঘাতক ভাই আটক নলছিটিতে কৃষকদের মাঝে বিণামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ জবিতে চৈত্র সংক্রান্তি উদযাপিত মোরেলগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৬ ব্যবসায়ীকে অর্থদন্ড রাজশাহীতে দুস্থদের মাঝে সত্যের জয় সামাজিক সংগঠনের ইফতার বিতরণ রামপালে সংখ্যালঘু শীল বংশের বারোয়ারী পুকুর দখল চেষ্টায় পূজা পরিষদের ক্ষোভ প্রকাশ বাকেরগঞ্জে তিন টি ইউনিয়নে প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের (ক শ্রেণির) মধ্যে যাচাই-বাছাই নলছিটিতে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত নারী প্রতিনিধিদের দায়িত্ব-কর্তব্য বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা রাজশাহীর বাঘায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কলেজ ছাত্রের মৃত‍্যু বাগেরহাটে ধর্ষনের অভিযোগে অটোরিক্সা চালক আটক
নোটিশ:
প্রতিনিধি নিয়োগের জন্য যোগাযোগ করুন: ০১৭২৬ ০৫ ০৫ ০৮
শ্রীনগর ঐতিহ্যবাহী সরকারি খালটি শুধুই আশ্বাস,উদ্ধারে নেই উদ্যোগ
/ ৩৮ বার
আপডেট সময় : বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ৬:২৮ অপরাহ্ন

 

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ। লৌহজং মুন্সীগঞ্জ ।
মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর,আড়িয়ল বিল, সিরাজদিখান, ও লৌহজং, এই তিন উপজেলা শহর গুলোতে শত বছর জাবত ঐতিহ্যবাহী সরকারি খাল দিয়ে,হরহামেশা চলাচল করে আসছিলছিল ছোট বড় মাঝাড়ি নৌকা।
এ জেলায় বছরের তিন মাস বর্ষা মৌসুমে,রাস্তাঘাট চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় একমাত্র ভরসা ছিল নৌকায় পারাপার,তাও গত দুই বছর আগেও।
ঐতিহ্যবাহী শ্রীনগর সরকারী খাল টি দিয়ে । আজ প্রভাবশালী মহলের দখল আর দূষনে হারিয়ে যেতে বসেছে ।একের পর এক দখল প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকার কারনে খালের দু’পাড়ে গড়ে উঠেছে অসংখ্য অবৈধ দোকান পাট স্থাপনা। ফলে দিন দিন খালটি সরু হয়ে যাচ্ছে।
বিক্রমপুরের গুরুত্বপূর্ণ শ্রীনগর বাজার ও বাড়ৈখালী বাজারের দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ময়লা আর্বজনা অপসারন করা হচ্ছে – বছরজুড়েই।
যার ফলে খালটি পরিণত হয়ে উঠেছে বর্তমানে ভাগাড়ে। এতে করে মারাত্মকভাবে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ,নাকে কাপড় না দিয়ে চলাচল দুষ্কর এই পথের চলাচলকারি ছাত্র-ছাত্রী পথচারীদের।


মারাত্বক ভাবে দূষন হচ্ছেপরিবেশ। বিষয়টি কয়েকদফা প্রশাসনকে জানানোর পরেও নজরে আসেনি বা আমলে নেননি। বিক্রমপুরের ঐতিহ্যবাহী আড়িয়ল বিল, বাড়ৈখালী-শেখর নগর,লৌহজংয়ে বয়ে যাওয়া খালটির এক সময়ের যৌবনের সেই স্রোত এখন আর দেখা যায়না।
লৌহজং যাতায়াতের এই ক্ষতি স্থানীয়দের কাছে এখন খুবই পরিচিত । পাচঁ বছর আগেও এ খালটি ছিল নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার উপযোগী। প্রভাবশালী ভূমিদস্যুদের দখলদারি আর অবহেলায় এক সময়ের টইটম্বুর খাল এখন পরিণত হয়েছে দুর্গন্ধময় এক নালায়।
শ্রীনগর পরিবেশ বজায় রাখার জন্য এই খাল গুলোর ভূমিকা ছিল অপরিসীম। দখলদারদের দখলদারি আর অবহেলায় খালটি প্রায় বিলুপ্তির পথে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, ঐতিহ্যবাহী শ্রীনগর বাজার এবং বাড়ৈখালী বাজারের সাথে মিশে থাকা এই খালটি। মূলত পদ্মা নদীর শাখা নদী। ধলেশ্বরী নদীতে গিয়ে মিশেছে। খালের দু’পাশে দখল করে গড়ে উঠেছে নানা ধরনের স্থাপনা। এছারা দীর্ঘ দিন খালটিতে ড্রেজিং ব্যবস্থা না করার কারনে পলি মাটি ও ময়লার আর্বজনা ফেলায় খালটির হারিয়ে যেতে বসেছে ঐতিহ্য।
শ্রীনগর,বাজারের বিভিন্ন পচাঁ সবব্জি, মরা হাস-মুরগী ও গরু-ছাগলের রক্তসহ নানা ধরনের ময়লা ফেলার কারনে দুর্গন্ধে সাধারন মানুষের চলাচল করতে খুব কষ্ট হয়ে পড়েছে। খালের মধ্যে আবর্জনা দেখে মনে হবে এটা কোনো ময়লার ডাজবিন।


শ্রীনগরের ব্যবসায়ী মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, বছরের পর বছর এ খালে ড্রেজিং না করায় নাব্য সংকটের কবলে খালটি, তাতে হারিয়ে গেছে মূল সিমানা । খাল পার হওয়ার সময় দূর্গন্ধে তাদের বমি চলে আসে।
শ্রীনগর বেজগাঁও বাসিন্দা মোহাম্মদ ওসমান মাহমুদ জানায়, আমরা এই খালের পানি খাওয়া সহ ব্যাবহার করে আসছি ছোট বেলা থেকে,এখন শুধু স্মৃতি ।
এখন খালের পানি ব্যবহারতো দূরের কথা। খালের পানি এখন কালো ও দূর্গন্ধের কারনে পাশ দিয়ে যাওয়াই দুষ্কর।
এক সময় এই খালে প্রচুর পরিমানে মাছ পাওয়া যেতো। অনেকে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করতেন। খাল দিয়ে পন্য বাহি লঞ্চ, স্টিমার, নৌকা চলা চল করতো। ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষ অতি সহজেই তাদের পন্যবাহী মালা-মাল অনায়াসে নিতে পারতেন। কিন্ত অত্যন্ত দু:খের বিষয় দখল আর দুষনে হারিয়ে যেতে বসেছে ঐতিহ্যবাহী শ্রীনগর খালটি। হয়তো এ ভাবে দখল বানিজ্য চলতে থাকলে এক সময় খালটি মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর-সিরাজদিখান উপজেলা মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে।
মোঃ মোতালেব হোসেন জানান, খালের দু পাশে সরকারি দুটি ব্রিজ রয়েছে যার শুভ উদ্বোধন আজ ২২ মাস কিন্তু অবৈধ দোকান ঘর উত্তলনের কারনে ব্রিজদুটিও কোন কাজে আসছে না পথ চারিদের, প্রতিদিন ঘন্টার পর ঘন্ট জ্যাম ঠেলে চলাচল করতে হয়। তাতে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা ।
শ্রীনগর বাজারের ব্যবসায়ী মোঃ লিয়াকত খান টুটুল জানায়, বেশির ভাগ অবৈধ দোকান দখলদার (মালিক) আওয়ামীলীগ নেতা,তারা ৬-৭ লাখ টাকা এডভান্স ১২ থেকে ১৫-হাজার টাকা প্রতি টি দোকান বাবদ, মাসে ভাড়া নিচ্ছেন। এর মধ্যে শ্রীনগর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানে,রেহানা বেগমের দখলে রয়েছে ৩টি দোকান সেখানে প্রতি মাসে ভাড়া নিয়ে থাকেন ৪৫হাজার টাকা। আরো অনেক নেতা রয়েছেন তারা প্রশাসন কে মেনেজ করে খালের জায়গা উৎসমুখে দখল করে আসছে ।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী(ঢাকা বিভাগ) রণেন্দ্র শংকর চক্রবর্ত্তী জানান, মুন্সিগঞ্জের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ খাল খননের ব্যাপারে উদ্যোগ নিচ্ছেন তারা। এর মধ্য শ্রীনগর বাজার খালটিও রয়েছে। তবে বড় সমস্যা হচ্ছে দুপাশের দখল, খালের উৎসমুখ ও যে পথ দিয়ে পানি অপসারণ হবে সেগুলো বন্ধ হয়েগেছ।এগুলো অপসারণ না করে মধ্যভাগে খাল খনন করা হলে পানির প্রবাহ আসবে না।এতে খনন কোন কাজেই আসবে না। জেলা প্রশাসন থেকে খালের সীমানা নির্ধারণ,উৎসমুখ খনন করে দেওয়া হলেই খনন কাজ শুরু করা যাবে।

এ বিষয়ে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কাজী নাহিদ রসুল বলেন, দেশের ছোট-বড় প্রতিটি খাল উদ্ধার ও সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য সরকার কাজ করে চলেছে।খালটির বিষয় জানা ছিলনা।খালটির বিষয়ে আগে কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে কিনা খোঁজ নিবো।সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে,খাল উদ্ধার,সীমানা নির্ধারণ,খননসহ সব ধরনের উদ্যােগ নেওয়া হবে।

#####################

মোঃ রুবেল ইসলাম তাহমিদ। লৌহজং মুন্সীগঞ্জ ।
০১৭১১১৪৪৪২১
২২ -০২- ২০২২,

01726050506

এ জাতীয় আরো খবর
আমাদের ফেইসবুক পেইজ