বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৫:২১ পূর্বাহ্ন বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
শিরোনাম :
ভাইয়ের হাতে ভাই খুনের ঘটনায় ঘাতক ভাই আটক নলছিটিতে কৃষকদের মাঝে বিণামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ জবিতে চৈত্র সংক্রান্তি উদযাপিত মোরেলগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৬ ব্যবসায়ীকে অর্থদন্ড রাজশাহীতে দুস্থদের মাঝে সত্যের জয় সামাজিক সংগঠনের ইফতার বিতরণ রামপালে সংখ্যালঘু শীল বংশের বারোয়ারী পুকুর দখল চেষ্টায় পূজা পরিষদের ক্ষোভ প্রকাশ বাকেরগঞ্জে তিন টি ইউনিয়নে প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের (ক শ্রেণির) মধ্যে যাচাই-বাছাই নলছিটিতে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত নারী প্রতিনিধিদের দায়িত্ব-কর্তব্য বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা রাজশাহীর বাঘায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কলেজ ছাত্রের মৃত‍্যু বাগেরহাটে ধর্ষনের অভিযোগে অটোরিক্সা চালক আটক
নোটিশ:
প্রতিনিধি নিয়োগের জন্য যোগাযোগ করুন: ০১৭২৬ ০৫ ০৫ ০৮
একুশের চেতনা অনুষ্ঠানিকতায় সীমাবদ্ধ হতে চলছে
/ ৪১ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২, ৮:০৪ পূর্বাহ্ন

//এস এম পলাস//
’’আবার এসছে ফাগুণ ছেলে হারা মায়ের বুকে লেগেছে আগুণ” আজ মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ১৯৫২ সালের এই দিনে বাংলা মায়ের একদল শ্রেষ্ঠ সন্তান মাতৃভাষা রক্ষায় ঢাকার রাজ পথে দেহের টগবগে রক্ত ঢেলে দিয়ে রক্ত ঋণে ঋণী করে গেছেন সমগ্র বাঙালি জাতিকে। সময়েরে ব্যবধানে কেটে গেছে অর্ধ শতাব্দি। দিকে দিকে পরিবর্তন হয়েছে অনেক কিছু। আমরা আধুনিক, শিক্ষিত হয়েছি অথচ ভূলে যাচ্ছি শেকরে টান। প্রজন্মের পর প্রজন্ম ছাড়িয়ে আজ চলছে নতুন প্রজন্মের জয়গান। কিন্তু সে প্রজন্ম নিজেদের সংস্কৃতি ভূলে এক অস্থির সংস্কৃতির পথে হেটে চলছে। আকাশ সংস্কৃতি, ইন্টারনেট, তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে আজ পৃথিবী আমাদের হাতের মুঠোয়। আমরা জানতে পাড়ি অন্য জাতী, সংস্কৃতি, ভাষা সম্পর্কে। কিন্তু বিষয়টা সেখানেই যখন আমরা বাঙালি সংস্কৃতিকে ফেলে রেখে অনুকরন করতে থাকি উদ্ভট অপ সংস্কৃতি। এফ এম রেডিও, ভিবিন্ন টিভি প্রোগ্রামে বাংলা ভাষাকে অস্থির ভাবে বালার ঢং তার প্রমান করিয়ে দেয় যে, আমরা আমাদের ভাষার প্রতি শ্রদ্ধা কতখানি হারিয়ে ফেলেছি। আবার দেখা যায় আমরা নিজেরা কথা বলার সময় ইংলিশ, বাংলা, হিন্দি, উর্দ মিলিয়ে কথা বলি। কেউ এটাকে গৌরব মনে করে। কিন্তু বাস্তবে সে নিজের ভাষা বাংলা শুদ্ধ ভাবে বলতেই জানে না। আমাদের উচিৎ আগে নিজের ভাষা শেখা এবং প্রয়োগ করা। তার পরে অন্যা ভাষ। সাইনবোর্ড, টিভি বিজ্ঞাপন, ভিজিটিং কার্ড, প্রতিষ্ঠানের নাম করণের বেলাও বর্তমানে ইংরেজীর স্থান আগে দেয়া হয়। এ ক্ষেত্রে অনেকে বাংলার ব্যাবহার’ই করেন না। যা খুবই দূঃখ জনক ব্যাপার। ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে হিন্দি, হিংলিশ ও ডিজে গানের আযোজনে ব্যস্ত থাকে কিছু-কিছু তরুন। তারা জানেই না আসলে মাতৃভাষা কি? এ সব কিছুর জন্যই দায়ী আমাদের মানসিকতা। তাই আকাশ সংস্কৃতি কিম্বা তথ্য প্রযুক্তি দায়ী করে লাভ নেই। প্রয়োজন শুধূ মানসিকতার পরিবর্তন।
যে ভাষার জন্য এ সবুজ গ্রহে মহান আত্মত্যাগের ইতিহাস সৃষ্টি করে গেছেন বাংলা মায়ের ধামাল ছেলেরা। সেই মহান অত্মত্যাগ আজ শুধূ প্রভাতে খালি পায়ে হাটা, বইয়ের পাতা, কবিতা পাঠ, টিভি চ্যানেলের বিভিন্ন অনুষ্ঠান , পত্র-পত্রিকার সাময়িকী, আর মঞ্চে বক্তব্য ও অনুষ্ঠানিকতায় সীমবদ্ধ হয়ে পরেছে। যে চেতনায় ভাষা আন্দোলন হয়েছিল তার বাস্তবতা আছে কতটুকু।

01726050506

এ জাতীয় আরো খবর
আমাদের ফেইসবুক পেইজ